শুষ্ক ত্বকের বা ড্রাই স্কিনের যত্ন কিভাবে করবেন। How to care dry skin.

Share

শুষ্ক ত্বকের যেমন উপকারিতা আছে তেমন অপকারিতাও আছে। আপনার যদি শুষ্ক ত্বক হয় তাহলে বলবো আপনার ব্রণ একনি নিয়ে চিন্তা করার কিছু নেই। কিন্তু আপনার শুষ্ক ত্বকেরই পরিচর্যা বেশী করতে হবে কারণ শুষ্ক ত্বক মানেই মৃত কোষ দেখা যাওয়ার দুঃচিন্তা, ফ্ল-লেস মেকাপ না পাওয়ার দুঃচিন্তা,স্কিনের গ্লো কমে যাওয়ার দুঃচিন্তা তো আছেই।

তবে অল্প একটু নিয়ম মেনে পরিচর্যা করলেই আপনি সুন্দর ত্বকের অধিকারী হবেন।

 

কেন ত্বক শুষ্ক হয়?

বংশগত বা জিনগত কারণে অনেকের ত্বকে তেলগ্রন্থিগুলো প্রয়োজনের তুলনায় কম থাকে। এর ফলে পর্যাপ্ত তেল নিঃসৃত হয় না। তাই ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়।

*   বয়স ৪০-এর পর তেল ও ঘর্মগ্রন্থির সংখ্যা কমে যায়। তাই পর্যাপ্ত গ্রন্থি না থাকার কারণে ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়। ছোটদের তেলগ্রন্থিগুলো সঠিকভাবে গঠিত থাকে না, ফলে তাদের ত্বকও শুষ্ক হতে পারে।যাদের ত্বকের গঠন পাতলা, তাদের ত্বক শুষ্ক হয়।

*  ক্লোরিনযুক্ত পানিতে অতিরিক্ত সাঁতার কাটলে বা গোসল করলে বিশেষ করে গরম পানি বা ক্ষারযুক্ত সাবান ব্যবহার করলে ত্বক শুষ্ক হয়।

*  অতিরিক্ত আকাশপথে ভ্রমণ, ভিটামিন এ ও বি এবং জিঙ্ক ও ফ্যাটি অ্যাসিডের অভাব হলেও ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়।

*   পানিশূন্যতা হলে যেমন-ডায়রিয়া, উচ্চ মাত্রার জ্বর, অতিরিক্ত ঘামা এবং প্রতিদিন প্রয়োজনীয় পানি পান না করা হলে ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়।

*   কিছু চর্ম রোগের কারণে যেমন একজিমা, ডার্মাটাইটিস, সোরিয়াছিসে ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়।

*   কিছু ওষুধ সেবন, এয়ার কন্ডিশনে অতিরিক্ত অবস্থান, থাইরয়েডের সমস্যা, ডায়াবেটিস, অতিরিক্ত পারফিউম ব্যবহার ইত্যাদিও ত্বক শুষ্ক করে।

 

প্রতিদিন সকালে করণীয়

সকালে ঘুম থেকে উঠেই প্রথমে যে কাজটা করবেন তা হলো, ঠান্ডা পানির ঝাপটা  দিয়ে আপনার মুখ কয়েকবার ধুয়ে নিন। এতে আপনার মুখের ত্বক খুব দ্রুত রিফ্রেশড হয়ে উঠবে।

 

তারপর একটি ময়েশ্চারাইজিং ক্লিনজার দিয়ে আপনার মুখ আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করে ধুয়ে নিন। কেমিক্যাল জাতীয় ফেইস ওয়াশ ব্যবহার না করে প্রাকৃতিক ফেইস ওয়াশ ব্যবহার করার ট্রাই করবেন কারণ প্রাকৃতিক উপাদানগুলোই ত্বকের জন্য সবচেয়ে ভালো।

এবার আপনার মুখ আলতোভাবে মুছে নিয়ে একটি ভালো টোনার লাগিয়ে নিন।  এক্ষেত্রে আপনি গোলাপজল ইউজ করতে পারেন কারণ এটি খুব ভালো টোনার হিসেবে কাজ করে।

এখন ময়েশ্চারাইজিং-এর পালা। আপনার ত্বকে ভালো কোন ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম লাগিয়ে নিন। যতক্ষণ পর্যন্ত এটি ত্বকের সাথে ভালোভাবে মিশে না যায় ততক্ষণ আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করতে থাকুন কারণ ময়েশ্চারাইজিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এবার সানস্ক্রিনের  সময়। আপনি যদি বাড়ির বাইরে যান তবে বাসা থেকে বের হওয়ার  ১৫-২০ মিনিট আগে একটি ভালোমানের সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন। এসপিএফ ৩০ আছে কি না লক্ষ্য রাখবেন। বাইরে গেলে  প্রতি কয়েক ঘন্টা পরপর পুনরায় সানস্ক্রিন লাগিয়ে নিন।

 

 

Foundation for dry skin এই টাইপের ফাউন্ডেশন ব্যাবহার  করতে হবে । আমি Milani foundation সাজেস্ট করবো  ড্রাই স্কিনের জন্য।  আপনি যদি মেকআপ ব্যবহার করতে চান তবে লাইট মেকআপ আপনার জন্য বেস্ট হবে। সেক্ষেত্রে আপনি ময়েশ্চারাইজার, বিবি ক্রিম এবং কনসিলার ব্যবহার করতে পারেন। এটাকে bb cream makeup look বলা যেতে পারে। তবে লক্ষ্য রাখবেন মেকআপের ফলে ত্বক যেন অতিরিক্ত শুষ্ক না হয়ে যায়।

 

কীভাবে প্রতিকার করবেন ?

*  ত্বক শুষ্ক হওয়ার প্রকৃত কারণ বের করে তা পরিহার করতে হবে।

*  ভালো ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন। ময়েশ্চারাইজার লাগানোর আগে মুখের মরা কোষ পরিষ্কার করুন।

 

 

*  দীর্ঘক্ষণ গোসল করবেন না। গরম পানিতে গোসল করবেন না।

*   ময়েশ্চারাইজারযুক্ত সাবান ব্যবহার করুন।

*   নরম সুতির আরামদায়ক কাপড় পরার চেষ্টা করবেন।

*   সারা দিনে দেড় থেকে দুই লিটার পানি পান করুন।

*   প্রতিদিন মৌসুমি ফল খাওয়ার চেষ্টা করবেন এবং শাকসবজি বেশি করে খাবেন।

প্রাকৃতিক উপায়ে শুষ্ক ত্বকের যত্ন

*   অলিভ অয়েল গোসলের কয়েক মিনিট আগে সারা শরীরে মেখে গোসল করুন।

*  অলিভ অয়েল ১ চামচ + লবণ ৫ চামচ + ১ চামচ লেবুর রস দিয়ে তৈরি স্ক্রাব মুখে ও সারা শরীরে লাগাতে পারেন। এতে মরা কোষ দূর হবে।

*   শুষ্ক জায়গায় মধু ম্যাসেজ করে ২-৩ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

*   অ্যালোভেরা জেল মধুর সঙ্গে মিশিয়ে লাগিয়ে ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

*  প্রচুর শাকসবজি খান। পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করুন। ত্বকের পরিচর্চা করুন।

 

 

মেকাপ করার পূবে করণীয়

শুষ্ক ত্বকে মেকাপ করার একটু পর দেখা যা বিশেষ কিছু অংশে মেকাপ ক্র্যাক করে, মেকাপ সেট হতে সময় নেয় কিন্তু তাও ফ্ল-লেস মেকাপ লুক পাওয়া যায় না।  একটি কাজ আপনাকে অবশ্যই করতে হবে।

মেকাপ করার ৫-১০মিনিট আগে অবশ্যই মশ্চারাইজার ব্যবহার করুন তবে ফেস অয়েল ব্যবহার করা ভালো যাদের ত্বক অনেক বেশী শুষ্ক তাদের ক্ষেত্র।  কারণ ফেস অয়েল খুব তাড়াতাড়ি ত্বকে শোষন করে  ত্বককে মশ্চার করে। সেক্ষেত্রে অর্গান অয়েল এবং জোজবা অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। আপনার স্কিন গ্লোয়ি করতে সাহায্য করবে।

এরপর পরবর্তী ধাপ মেনে মেকাপ সম্পূর্ণ করুণ।

চুলের যত্নের সম্পর্কে জানতে আমাদের “ঘরে বসেই চুলের যত্ন ও সকল সমস্যার সমাধান” পোষ্ট পরতে পারেন।

এছাড়া আপনারা চাইলে আপনাদের প্রয়োজনীয় তেল এবং অন্যান্য স্কিন কেয়ার আইটেম আমাদের কারনেসিয়ার অনলাইন সপ থেকে পেয়ে যেতে পারেন। যা আপানর শুষ্ক ত্বককে করে তুল্বে আরও প্রানবন্ত।

 

Leave a Comment

Recent Posts

বডি শপ সিউইড ক্লিনিজিং জেল ওয়াশ(The Body Shop Seaweed Cleansing Gel Wash)

আপনার ত্বক যে টাইপেরই হোক না কেন, তা আপনার কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই সবাই-ই চায় সুন্দর ও হেলদি স্কিন যা… Read More

2 years ago

বডি শপ ভিটামিন ই ক্রিম ক্লিনজার(The Body Shop Vitamin E Cream Cleanser)

বডি শপ ভিটামিন ই ক্রিম ক্লিনজার(The Body Shop Vitamin E Cream Cleanser) হলো একটি ফেসিয়াল ক্রিম ক্লিনজার যা আপনার মুখের… Read More

2 years ago

নিউট্রোজিনা ভিজিবিলি ক্লিয়ার পিঙ্ক গ্রেপফ্রুট ফেসিয়াল ওয়াশ(Neutrogena Visibly Clear Pink Grapefruit Facial Wash)

যদি এমন হয় আপনার ত্বক আগের থেকে আরও সুন্দর ও গোলাপি আভা দিচ্ছে? এখন আপনিও পেতে পারেন আকর্ষণীয় ত্বক৷ নিউট্রোজিনা… Read More

2 years ago

দি বডি শপ অ্যালো কালমিং ফোমিং ওয়াশ(The Body Shop Aloe Calming Foaming Wash)

আপনার সংবেদনশীল ত্বকের জন্য আপনি অবশ্যই ভালো এবং স্কিন টাইপ অনুযায়ী ফেইস ওয়াশ কেনা উচিৎ। কেননা যে কোনো কিছু আপনার… Read More

2 years ago

টি ট্রি 3-ইন-1 ওয়াশ স্ক্রাব মাস্কটি(The Body Shop Tea Tree 3-In-1 Wash Scrub Mask)

টি ট্রি 3-ইন-1 ওয়াশ স্ক্রাব মাস্কটি(The Body Shop Tea Tree 3-In-1 Wash Scrub Mask) সব দিকেই দক্ষ। এটি মুখের ধোয়া… Read More

2 years ago

সুপারড্রাগ ভিটামিন সি ফেসিয়াল ক্লিনজার 150 মিলি(Superdrug Vitamin C Facial Cleanser 150ml)

আমরা সকলেই জানি ভিটামিন-সি মুখের ক্লিনজার হিসেবে অনেক বেশি কার্যকর। আর তা যদি হয় প্রাকিতিক উপাদানে ভরপুর তাহলে তো আর… Read More

2 years ago

This website uses cookies.